img

এই তীব্র গরমে কী ধরনের পোশাক পড়া উচিত

/
/
/
249 Views

গরম আসলেই আমাদের অস্বত্বি আর কাজের সমস্যা বেশি হয়ে তাকে। যতই গরম পড়ুক না কেন আমাদের কাজ কিন্তু থেমে থাকে না। প্রচন্ড গরমে জীবন যদিও যায় যায় অবস্থা তুব কাজ করতে হবেই। আর যখন অতিরিক্ত গরমে সহ্য হয় না তখনেই কাজের মধ্যে সমস্যা হয়। প্রতিদিনের কাজের ব্যস্তাতায় শরীর ঘেমে একেবারে এনার্জি লস। তাই  গরমের মধ্যে থেকে মুক্তি পেতে আমাদের প্রতিদিনের পোশাকে পরিবর্তন আনতে হবে।

গরমে কী ধরনের পোশাক ব্যবহার করা উপযোগী

শীতের মধ্যে আমরা যে ধরনের পোশাক পড়ি না কেন উষ্ণ আবহাওয়া ও আর্দ্রতার কারণে শরীর মানিয়ে নিতে পারে। আর গরমের মধ্যে মানুষ যখন ঘেমে অস্থির হয়ে যায় তখন চাইলে যেকোন ধরনের কাপড় পরিধান করতে পারে না। তাই গরম থেকে মুক্তি নিতে আরামদায়ক ও স্বস্তিদায়ক কাপড় পড়তে হবে।

গরমের আরামদায়ক পোশাক হিসেবে সুতিঁ কাপড়ের কোন তুলনা হয় না। কারন সুতিঁ কাপড় এতটাই কমপর্টেবল যে শরীরের মধ্যে মিশে থাকে। বুঝায় যায় না যে শরীরের মধ্যে আছে কি না। আর গরমের মধ্যে সুতিঁ কাপড়ের সবচেয়ে বড় গুণ হল শরীর ঘাম শুষন করতে সাহায্য করে। সাথে শরীরকে ঠান্ডা রাখে। এছাড়াও হালকা রং এর সুতিঁ কাপড় রোদের তাপ থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে তাকে। অনেকেই আছেন যে গরমের মধ্যে অতিরিক্ত ঘেমে থাকেন তারা অবশ্যই সুতিঁ কাপড় পড়বেন।

গরমের মধ্যে স্বস্তিতে কাজ করার আর একটি উপায় হল ঢোলা-ঢালা কাপড় পড়া। ফিটিং কাপড় পড়ার অভ্যাস গরমের মধ্যে ত্যাগ করুন। ঢোল-ডালা কাপড় পড়ে আপনি কাজ করতে স্বস্তি বোধ করবেন। আর ফিটিং জামা পড়ে গরমের মধ্যে কাজ করতে অস্বস্তি লাগবে।

তীব্র গরমে মধ্যে সুস্থ থাকতে খাদ্য তালিকা জানতে  – এখানে ক্লিক করুন

যারা কলেজ অথবা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েন তারা গরমের মধ্যে স্বস্তি পেতে টি-শার্ট ব্যবহার করতে পারেন। কারন বর্তমানে টি-শার্ট এখন হট ফ্যাশনেবল। এক কথায় সবাই লাইক করে। আর গরমের মধ্যে টি-শার্ট বেশ আরামদায়ক। আর গরম কালে বিভিন্ন ব্যান্ডের টি-শার্ট এর বৈচিত্র ও কালেকশন পাওয়া যায়। তাই টি-শার্ট ব্যবহার করতে পারেন। টি-শার্ট পাশাপাশি সুতিঁ কাপড়ের বিভিন্ন ফতুয়া, ফুলকটন শার্ট, জিন্স, গ্যাবার্ডিন ও সুতি টাউজার ব্যবাহার করতে পারেন।

গরমের মেয়েরা যদি স্বস্তি বোধ করতে চান তাহলে অবশ্যই ভারী পোশাক একেরারেই না। দেখা যায় যে ভারী পোশক ব্যবহার করাতে পুরা শরীর ঘেমে অস্তির হয়ে যায়। তাই গরমের মধ্যে অস্বস্তি থেকে স্বস্তি পেতে সুতি সেলোয়ার কামিজ, ঢোলা ঢালা পোশাক পড়া।

গরমের মধ্যে বয়স্কর মানুষের হয় আরও বড় সমস্যা। অনেক সময় দেখা যায় অতিরিক্ত গরমে তাদের পেশার হাই হয়ে যায়। গরমের মধ্যে তারা ঠিক করে কোন কিছুই করতে পারে না। তাই এই অতিরিক্ত গরমের মধ্যে তাদের আরামদায়ক পোশাক হিসেবে সুতিঁ কাপড় অনেক ব্যাটার। তাদের জন্য সুতিঁ পাজ্ঞবি, ফতুয়া টাউজার ও লুঙি ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারেন।

অনেক সময় দেখা যায় মহিলারা অতিরিক্ত গরমের ফলে বাসা বাড়ি কাজ করতে পারেনা। তাই গরমে স্বস্তি পেতে সুতি কাপড়, মেক্সি, কামিজ ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারেন।

গরমের মধ্যে সবচেয়ে বেশি জরুরী হল শিশুদের পোশাক নির্বাচন করা। কেননা একজন প্রাপ্ত বয়স্কর মানুষের তুলনায় একজন শিশুর ত্বক অনেক পাতলা। আর অতিরিক্ত গরমে শিশুরা সহ্য করতে পারেনা। যার ফলে তারা বিভিন্ন অসুখের মধ্যে পড়ে যায়। প্রচন্ড গরমের জন্য শিশুদের ঘামাচি, চুলকানি, এল্যার্জি ও ফুসকুড়ি রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ে। যার ফলে তাদের অস্বস্তি বোধ হয়।

  • Facebook
  • Twitter
  • Google+
  • Linkedin
  • Pinterest

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This div height required for enabling the sticky sidebar